,



ভ্রমণে ভোজন, সিলেট

ভ্রমণ মানেই নতুন নতুন জায়গার সাথে পরিচিত হওয়া। নতুন মানুষের সাথে পরিচিত হওয়া। সব কিছু ছাড়িয় ভ্রমণের মুল উদ্দেশ্য হচ্ছে ছুটির দিনে শহরের কলহল থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখা। একটু রিফ্রেশ হওয়ার জন্য। কিন্তু এর মাঝেও অনেকে আছেন যারা যেখানেই ভ্রমণে যান না কেনো তাদের একমাত্র উদ্দেশ্য থাকে সেখানকার জনপ্রিয় খাবার চেখে দেখা। আর করবেই না কেন বাংলাদেশের সকল অঞ্চলের খাবার এবং রান্নার ধরন কখনোই এক ববে না সেটা জানা কথা। আর প্রতিটা অঞ্চলের খাবারের স্বাদও হবে আলাদা তাই চেখে দেখা উচিৎ কোনটা কেমন। তাহলে জানতে পারবেন খাবারের অনেক রকম-সকম।

তবে সমস্যা হচ্ছে সবাই তো আর সবা জায়গায় বেড়াতে যাওয়ার আগেই বলতে পারে না যে ওই অঞ্চলের স্পেশাল খাবার কোনটা বা কোথায় পাওয়া যাবে। যদি আগে থেকে জানা থাকে তাহলে অনেক ঝামেলা কমে যায়। চিন্তার কিছুই নেই, আপনার সুবিধার জন্য আমরা ধারাবাহিকভাবে আপনাকে জানাবো কোন অঞ্চলের স্পেশাল খাবার কোনটি ও কোথায় পাবেন।

আজকে আমাদের ভ্রমণ ভোজনে থাকছে সিলেট

সিলেট ভ্রমণপিপাসুদের জন্য অন্যতম পছন্দের একটি জায়গা। আর সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলের খাবারগুলো আকর্ষণ করতে পারে পর্যটকদের। সিলেট ঘুরতে গেলে যে দুটি জায়গার খাবার মিস করা চলবেই না, তা হলো পাঁচভাই রেস্টুরেন্ট ও পানসী রেস্টুরেন্ট।

পাঁচভাই রেস্টুরেন্টের নাম সিলেটের সবার মুখে মুখেই শোনা যায়। নগরীর দাঁড়িয়া মোড়ে বড় সাইনবোর্ডে দেখা যাবে এই রেস্টুরেন্টের নাম। হোটেলের সামনের লাইন দেখেই আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন এটাই সেই পাঁচভাই রেস্তোর্রা।

ভর্তা, ভাজি থেকে শুরু করে মাংস, কলিজা ভুনা সবকিছুই মিলবে একেবারে সুলভমূল্যে। আর খাবারের শেষে আয়েশ করে ডেজার্ট হিসেবে খেতে পারেন দই কিংবা ফালুদা। বিশেষ করে পাঁচভাই-এর ফালুদার অতুলনীয় স্বাদ মুখে লেগে থাকার মতো।

আরেক রেস্টুরেন্ট পানসীর অবস্থান জিন্দাবাজারের জাল্লারপার রোডে। পাঁচভাই-এর মতোই এখানে পাবেন দেশি সব রকমের খাবার। তাও আবার সাধ্যের মধ্যেই।

সিলেট ভ্রমণে গিয়ে এই দুটি জায়গায় খাওয়ার বিষয়টি মাথায় রাখা আবশ্যক। তা নাহলে সেই আফসোস হয়তো বয়ে বেড়াতে হবে আরেকবার সিলেটে যাওয়ার আগ পর্যন্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ