,



১৮ অক্টোবর চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন

দেরিতে হলেও অবশেষে ঘোষিত হল বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের তারিখ। ১৮ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন সমিতির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান।

এবার সব ঝামেলা শেষ করে নতুন নির্বাচনের তারিখ দিয়েছি। আশা করছি ঘোষিত সময়ের মধ্যে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে পারব।’ তিনি আরও জানান, ৪ অক্টোবর তফসিল ঘোষণা করা হবে। এরপর শিল্পীদের ভোটার তালিকাসহ অন্যান্য তথ্য প্রকাশ করা হবে।

এবারের নির্বাচনের প্রার্থিতা কিংবা প্যানেল তৈরি নিয়ে বিশেষ কোনো পূর্বাভাস এখনও পর্যন্ত লক্ষ করা যায়নি। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান একই পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন এটি প্রায় নিশ্চিত। তার সঙ্গে একই প্যানেল সভাপতি হিসেবে মিশা সওদাগরই থাকছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জায়েদ খান। তিনি বলেন, ‘মিশা ভাইকে নিয়েই আমরা প্যানেল করছি। আমাদের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।’

এদিকে সভাপতি পদে এরই মধ্যে চিত্রনায়িকা মৌসুমী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কাকে নিয়ে প্যানেল করবেন সেটি বলেননি। তার প্যানেলে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কেউ কেউ চিত্রনায়ক সাইমন সাদিকের নামও বলছেন। তবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার বিষয়ে একেবারেই আগ্রহী নন এ নায়ক।

 সাইমন সাদিক বলেন, ‘আমি এবার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব না। এটাই আমার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। এমনিতেই ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ কম। এই কম কাজের মধ্যেই আমাদের টিকে থাকতে হচ্ছে। তাই আপাতত অভিনয় নিয়েই আমি ব্যস্ত থাকতে চাই। যারা নির্বাচনে অংশ নেবেন সবার প্রতিই আমার শুভকামনা থাকবে। অন্যদিকে দীর্ঘদিন ধরে চাউর হয়ে আসছে সমিতির সাবেক সভাপতি দেশসেরা নায়ক শাকিব খান এবার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। তার প্যানেলে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে থাকবেন ডিএ তায়েব। তবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ব্যাপারে শাকিব খান এখনও পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেননি কিংবা এ সংক্রান্ত কোনো উচ্ছ্বাসও তার মধ্যে লক্ষ করা যায়নি। স্পষ্ট কিছু বলেনওনি। যদি শাকিব খান নির্বাচনে অংশ নেন এবং তার সঙ্গে ডিএ তায়েব সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হন তাহলে সেখানেও বিপত্তি আছে।

কারণ শিল্পী সমিতির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কোনো সরকারি চাকরিজীবী সমিতির নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অংশ নিতে পারবেন না। যদি তাকে অংশ নিতে হয় তাহলে চাকরি থেকে পদত্যাগ করতে হবে। এরকম একটি উদাহরণও আছে। প্রয়াত অভিনেতা খলিলউল্লাহ শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য আনসার ভিডিপি’র চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। ডিএ তায়েব যেহেতু বাংলাদেশ পুলিশের গুরুত্বপূর্ণ পদে চাকরি করছেন তাই শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য পুলিশের চাকরির ইস্তফা দেবেন বলে মনে হয় না।

সম্প্রতি চিত্রনায়ক রুবেল সভাপতি হিসেবে স্বতন্ত্র নির্বাচন করার কথাও জানিয়েছেন। তবে সেটা নির্ভর করছে যোগ্য প্রার্থীর অংশগ্রহণের ওপর। এসব কিছুর বিস্তারিত জানা যাবে তফসিল ঘোষণার পর থেকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ