,



গাজীপুরে রেলক্রসিংয়ে সেলফি বাজিতে প্রাণ গেলো এসএসসি পরীক্ষার্থীর

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ চলতি এইচএসি পরীক্ষায় গণিত বিষয়ে ভাল পরীক্ষা হওয়াতে কাওসার হোসেন (১৬) নামের এক শিক্ষার্থী বুধবার বিকেলে পরিবারের কিছু সদস্য আর বন্ধুদের নিয়ে বেড়াতে যায় রেল পথে। কোনাবাড়ীর পারিজাত এলাকার হরিণাচালা গ্রাম থেকে ৫-৬ জনের একদল সদস্য মোটরসাইকেল যোগে কাওসার হোসেন কোনাবাড়ী- শাকাশ্বর সড়কের পাকার মাথা রেলক্রসিংয়ে নামে। সেখানে তাদের মোটর সাইকেল রেখে হাটতে হাটতে গাজীপুরের দিকে যেতে থাকেন। তখন আছর এর আযান মসজিদ থেকে ভেসে আসছে। এমন সময় টাঙ্গাইল থেকে ঢাকাগামী একটি ডামি ট্রেন দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। কাওসার পকেটে থাকা মোবাইল ফোনটা বের করেই সেলফি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। ততক্ষণে ট্রেনটি কাছে চলে আসলেও রেল পথ থেকে কাওসার পা সরাতে পারেনি। ফলে ট্রেনের আঘাতে দুই পা এবং মুখমন্ডল থেতলে গিয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় কাওসার হোসেন।  পরে কাওসার হোসেনের সহপাঠীরা তার পরিবারের অভিভাবকদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ঘটনাটি জানায়।

সেলফি তুলতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে পরিবারের সদস্যরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে বাড়ীতে নিয়ে যায়। নিহত কাওসার হোসেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ী থানার পারিজাত এলাকার হরিনাচালা গ্রামের সানোয়ার হোসেনের বড় ছেলে। দুই ভাই আর এক বোনের মধ্যে সে সবার বড় ছিল। কাওসার চলতি এসএসসি পরীক্ষায় স্থানীয় রীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল থেকে কোনাবাড়ী আরিফ কলেজের কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ছিলো।

নিহতের সহপাঠী হৃদয় ইসলাম জানায়, কাওসার আমার পিছনে বসে গতকাল গণিত পরীক্ষা দিয়েছে। ওই সময় তাকে জানিয়েছিলো গণিত পরীক্ষা তার ভাল হয়েছে। এভাবে কাওসার আমাদের ছেড়ে চলে যাবে বুঝতে পারি নাই। রেলপথে স্লিপারের সাথে পা ফসকে পড়ে যায়। এ সময় দ্রুতগামী ট্রেন তার দুইটি পা কেটে গিয়ে মুখ থেতলে যায়। নিহত কাওসার হোসেন হলো গাজীপুর সিটি করপোরেশন এর আট নং ওয়ার্ড কমিশনার সেলিম হোসেনের ভাতিজা। কাওসার হোসেন নিহতের খবর পেয়ে এলাকার হাজারো লোক এসে ভীড় করে।

এ সময় নিহতের বাবা সানোয়ার হোসেন ও তার মায়ের কান্নায় বাতাস ভারি হয়ে উঠে। এক হৃদয়বিদায়ক ঘটনার অবতারনা হয়। শাকাশ্বর এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য আবু বক্কর সিদ্দিকী জানান, শাকাশ্বর রেলক্রসিং এলাকা থেকে আধা কিলোমিটার পূর্বে কারখানা নামক এলাকার একটি লোহার ব্রীজের কাছে এ দূর্ঘটনা ঘটেছে। ডেমু ট্রেন তাকে ধাক্কা দিলে তার পা কেটে যায় এবং মুখ থেতলে যায়। নিহতের পরিবারের সদস্যরা নিহতের লাশ উদ্ধার করে বাড়ীতে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে কালিয়াকৈর থানার মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ীর এসআই রনি কুমার সাহা জানান, রেল লাইনের ঘটনা রেল পুলিশ দেখেন। আমরা এ বিষয়ে জানলেও কোন পদক্ষেপ নিতে পারি না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ